কুমিল্লা জেলায় ব্র্যাক কৃত্রিম প্রজনন এন্টারপ্রাইজের গবাদিপ্রাণির বাছুর প্রদর্শণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়

  • 17 May
  • 04:13 PM

নিজস্ব প্রতিনিধি 17 May, 22

ব্র্যাকের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সারাদেশব্যাপী বাছুর প্রর্দশনী ও পুরষ্কার বিতরনী ক্যাম্পইনের অংশ হিসাবে কুমিল্লা জেলায় ব্র্যাক কৃত্রিম প্রজনন এন্টারপ্রাইজের সিমেন ব্যবহার করে উৎপাদিত বাছুর প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। অদ্য মে ১৬,২০২২ ইং তারিখে কুমিল্লা জেলার বরু—া উপজেলার ঝাপুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বাছুর প্রর্দশনী ও পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা: নাজরীন সুলতানা তনু, ব্র্যাক কৃত্রিম প্রজনন এন্টারপ্রাইজের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার (সিলেট) বাদশা মিয়া আকন্দ ও ভেটেরিনারি সার্জন ডা: মেরিনা ঘোষ এবং এরিয়া সেলস ম্যানেজার মো: আব্দুল রাজ্জাক প্রমুখ।
উক্ত অনুষ্ঠানের এর সভাপতিত্ব করেন ডা: মো: মতিউর রহমান, ম্যানেজার লাইভস্টক সার্ভিস ও ট্রেনিং, ব্র্যাক কৃত্রিম প্রজনন এন্টারপ্রাইজ, প্রধান কার্যালয়, ঢাকা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্র্যাক কৃত্রিম প্রজনন এন্টারপ্রাইজের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার (চট্রগ্রাম) বাদশা মিয়া আকন্দ এবং অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন ডা: মেরিনা ঘোষ । অনুষ্ঠানে ব্র্যাক এর সিমেন ব্যবহারকরী শ্রেষ্ঠ ২০ জন খামারীকে পুরষ্কার প্রদান ছাড়াও কৃত্রিম প্রজননের উপর নির্মিত নাটক সুখের খনি ও ব্র্যাক কৃত্রিম প্রজনন এন্টারপ্রাইজ সম্পর্কিত ভিডিও ডকুমেন্টারি বড় পর্দায় প্রদর্শন করা হয়।

সারাদেশব্যাপী তিন (৩) মাসব্যাপী এই কার্যক্রমে বাংলাদেশ সরকাররের প্রাণিসম্পদ অধিপ্তরের সহযোগিতায় এবং নির্দেশনায় দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের গবাদি প্রাণিসমূহকে ব্র্যাকের সুদক্ষ রেজিস্টাট ভেটেরিনারিয়ানগণ দ্বারা ১৪০ টি মোবাইল ভেটেরিনারি ক্লিনিক পরিচালনা করে, বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও প্রয়োজনীয় ঔষধ প্রদান করবে। এর মাধ্যমে দেশব্যাপি ৩০,০০০ খামারীদের প্রায় ১,২০,০০০ থেকে ১,৫০,০০০ গবাদি প্রাণিকে রেজিস্টার্ড ভেটেরিনারি চিকিৎসকের মাধ্যমে উক্ত সেবা (মার্চ-মে’২০২২) প্রদান করা হবে । এছাড়া দেশব্যাপী ১৬ টি প্রোজেনি শোর মাধ্যমে ব্র্যাকের সিমেন ব্যবহার করে উৎপাদিত বাছুর প্রদর্শনীর মাধ্যমে খামারিদের পুরষ্কার প্রদান করা হবে। ব্র্যাকের এই উদ্যোগের ফলে গবাদি প্রাণির চিকিৎসাসেবা খামারি দোরগোড়ায় নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি উন্নতমানের পশুপালনে ও দেশের সার্বিক মাংস ও দুগ্ধ উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।