'শখ থেকে লেখালেখি, কবিতা নিয়ে মেডিকেল শিক্ষার্থীর ওয়েবসাইট'

  • 25 Dec
  • 11:08 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক 25 Dec, 21

'মেডিকেল শিক্ষার্থী' শব্দ দুইটি শুনলেই আমাদের চোখে ভেসে ওঠে গায়ে সাদা এপ্রোন এবং হাতে ভারী সব বই নিয়ে হন্তদন্ত হয়ে ব্যস্ত মুখে হাসপাতালের করিডোর, ওয়ার্ড কিংবা ক্লাসরুমে ছুটে চলা কারো প্রতিচ্ছবি। শৈশব, কৈশোরের বিভিন্ন শখ কিংবা অবসরের প্রিয় কাজে যেন জমা হয় রাজ্যের ধুলো, ব্যস্ততায় হারিয়ে যায় অনেকের প্রিয় সব শখ। তবে এসবের মাঝেও রাহবার-ই-দ্বীন যেন এক ব্যতিক্রম। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের চতুর্থ বর্ষ পড়ুয়া এই শিক্ষার্থী সব ব্যস্ততার ভিড়েও পরম যত্নে যেন লালন করে চলেছেন তার স্কুলজীবনের সাহিত্যচর্চার প্রিয় শখটি। এরই মাঝে তিনি লিখেছেন শতাধিক হৃদয়স্পর্শী ও সমকালীন বিষয়ে কবিতা। সেসব নিয়েই সাজিয়েছেন এক ব্যতিক্রমী ওয়েবসাইট।

ওয়েবসাইটে ঘুরে এলেই পাঠকেরা পেয়ে যাবেন তার বিভিন্ন সময়ে লেখা কবিতা, ছোটগল্প এবং মৌলিক থ্রিলার গল্প। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, "মূলত স্কুল ম্যাগাজিনে লেখার মাধ্যমেই সাহিত্যচর্চার প্রতি আগ্রহের শুরু। পরবর্তীতে নানামুখী ব্যস্ততা ও পড়াশোনার চাপে সে গতিতে কিছুটা ভাটা পড়লেও এখনো চেষ্টা করছি প্রতিনিয়ত এ শখটা ধরে রাখতে। আমার মনে হয় বর্তমান তরুণ প্রজন্মের বড় একটি অংশ এখন মৌলিক সাহিত্যচর্চা থেকে দূরে সরে যাচ্ছে, অথচ একসময় ডায়েরি লেখা কিংবা নিজের মতো গল্প-কবিতা লেখা ছিল মানুষের প্রিয় একটি শখ। তাই বিভিন্ন ব্যস্ততার মাঝেও এটি ধরে রাখতে চাই। সে চিন্তা থেকেই এই ওয়েবসাইটটি, যেটিতে যেমন প্রযুক্তিনির্ভর পাঠকেরা ডিজিটাল মাধ্যমে লেখা গুলো পড়তে পারবেন, একইভাবে ব্যস্ত জীবনের ভিড়েও লেখাগুলো মানসিকভাবে তৃপ্তি দেবে আমাকে।"

উল্লেখ্য, ২০২১ বাংলা একাডেমী গ্রন্থমেলায় 'অক্ষরবৃত্ত প্রকাশন' থেকে প্রকাশিত হয়েছিল তার প্রথম কবিতার বই 'নিঃসঙ্গ ল্যাম্পপোস্ট'। এছাড়া বর্তমানে লিখছেন সমকালীন বিষয় নিয়ে প্রথম উপন্যাস "একটি হারানো বিজ্ঞপ্তি", যা প্রকাশিত হতে যাচ্ছে ২০২২ সালে। মেডিকেল শিক্ষার্থী হয়েও কেন লেখালেখির চর্চা ধরে রেখেছেন, এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, "হাসপাতালের প্রতিটি তলা যেন জীবন-মৃত্যু, আনন্দ-বেদনা, বিষাদ-আবেগের এক অকৃত্রিম বাস্তব প্রতিচ্ছবি। একই হাসপাতালে কেউ হয়তো মৃত্যুপথযাত্রী, স্বজনের আহাজারী, অন্য তলায় হয়তো জন্ম নিয়েছে কোনো নবজাতক শিশু। আনন্দ-বেদনার এই অকৃত্রিম মঞ্চকে খুব কাছ থেকে দেখার সুবাদে গল্প কিংবা কবিতায় ফুটিয়ে তুলতে চাই মানবজীবনের অনুভূতিগুলোকে।"